Home / ত্বকের যত্ন / ক্ষতিগ্রস্ত ত্বক পুনরুজ্জীবিত করতে আয়ুর্বেদের অবদান

ক্ষতিগ্রস্ত ত্বক পুনরুজ্জীবিত করতে আয়ুর্বেদের অবদান

আশা করি সবাই ভাল আছেন। আজ আপনাদের মাঝে অরেকটি আর্টিকেল নিয়ে হাজির হলাম। আজ আপনাদের জানাবো ক্ষতিগ্রস্ত ত্বক(Skin) পুনরুজ্জীবিত(Revived) করতে আয়ুর্বেদের অবদান সম্পর্কে। আপাতত বন্দী দশায় দৈনন্দিন জীবন। করোনার(Corona) সংক্রমণ রুখতে সমস্ত গণ পরিবহণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ফলে বাড়িতেই দিন কাটছে বেশিরভাগ মানুষের। বাইরে না বেরোনোর ফলে ত্বকও কিছুটা স্বস্তির নিঃশ্বাস নিয়েছে। কিন্তু এতদিন যে ক্রমাগত ধুলো দূসণের মধ্যে নাজেহাল অবিওস্থা হয়েছে তার। এই বন্দী দশার সুযোগ নিয়ে ত্বকে(Skin) প্রাণসঞ্চার করা যাক কিছুটা। হয়ত ভাবতে বসবেন পার্লার তো বন্ধ। ত্বকের যত্ন হবে প্রকৃতির নিয়মে। সোজা ভাষায় ত্বকের পরিচর্যা হবে আয়ুর্বেদিক উপায়ে।

ক্ষতিগ্রস্ত ত্বক পুনরুজ্জীবিত করতে আয়ুর্বেদের অবদান

ক্ষতিগ্রস্ত ত্বক পুনরুজ্জীবিত করতে আয়ুর্বেদের অবদান

রোজকার ত্বক পরিচর্চার জন্য আয়ুর্বেদের একটি বড় অংশ কাজ করে চলেছে বহু যুগ ধরে। আধুনিক(উপকরণ) গবেষণাতেও ত্বকের জন্য আয়ুর্বেদের নানান উপকরণের গুণাবলীর কথা স্বীকার করা হয়েছে। ত্বকের কোনও সমস্যাতেও প্রথমে হার্বস ও প্রাকৃতিক উপকরণ(Materials) ব্যবহার করার কথা জানাচ্ছেন গবেষকরাও। কারণ প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহারের ফলে শুধু বাইরের নয়, ভিতর থেকে সমস্যার সমাধান সম্ভব হয়। ক্ষতিগ্রস্ত ত্বকে ফের উজ্জ্বলতা(Brightness) ফিরে পেতে ও তাকে সুস্থ করে তুলতে কিছু উপকারী টিপস রইল।

ক্ষতিগ্রস্ত ত্বককে ফের সতেজ ও সুস্থ(Healthy) করে তুলতে ব্যবহার করুন হলুদ। এতে রয়েছে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি ও অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান। দইয়ের সঙ্গে এক চিমটে হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে সারা মুখে লাগান। হাতে ও গলাতেও ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া ত্বক(Skin) অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে গেলে শুধুমাত্র কুমকুমাদি তেল ব্যবহার করতে পারেন। ঘুমাতে যাওয়ার আগে কয়েক ফোঁটা তেল নিয়ে মুখে ও হাতে মাসাজ করুন। ফল মিলবে দ্রুত।

ক্ষতিগ্রস্ত ত্বকের সমস্যা নির্মূল করতে হলে ভরসা রাখুন প্রাকৃতিক উপাদান নিমের উপর।, মুখের মধ্যে ব্রণ(Acne) ও কালো ছোপ দেখা দিলে নিম পাতা ব্যবহার করুন। সুস্থ ত্বক পেতে নিমাপাতার ফেসমাস্ক ব্যবহার করতে পারেন, নাহলে খালি পেটে নিমপাতার রস বা বাটা খেতে পারেন। এছাড়া রোজ সকালে নিমপাতা ভেজানো গরম জল(Hot water) খেতে পারেন। ত্বকে ব্রণ, কালো দাগদূর তো হবেই, সতেজ ও উজ্জ্বলতাও বাড়বে।

ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কেমন লাগছে ও আপনার যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে জানান। আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে দয়া করে শেয়ার করুন। পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

Check Also

ব্রণ ও ফোঁড়া নিরাময়ের ভেষজ চিকিৎসা

ব্রণ ও ফোঁড়া নিরাময়ের ভেষজ চিকিৎসা

আশা করি সবাই ভাল আছেন। আজ আপনাদের মাঝে অরেকটি আর্টিকেল নিয়ে হাজির হলাম। আজ আপনাদের ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *